Class 9 Islam Assignment 10th Week & Answer 2021

Originally posted on August 16, 2021 @ 7:20 pm

Class 9 Islam Assignment 10th Week & Answer. Our Education system has come to a standstill due to the Covid-19. So educational institutions have closed for a long time and our schools are not able to run education. In this situation not possible to take academic exams in school. In the case of the Government take a decision to start all students of class 6 to 9 assignment from 1st November to 15 December in the option of Annual Examination. Class 9 Assignment 10th Week for Bangla, English, Math, Islam & Moral Studies, Hinduism, Buddhism, Christianity Religion, Information Communication Technology (ICT), Social Science subjects are available here. বাংলা, ইংরেজি, গণিত, ইসলাম ও নৈতিক অধ্যয়ন, হিন্দুধর্ম, বৌদ্ধধর্ম, খ্রিস্টান ধর্ম, তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি), সামাজিক বিজ্ঞানের বিষয়সমূহের জন্য ষষ্ট শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট। ক্লাস সিক্সের প্রথম থেকে ষষ্ঠ সপ্তাহের সকল এসাইনমেন্ট। Class Six Islam Sikka

Class 9 Islam Assignment, 10th Week

Here is the Class nine Islam Assignment 5th week published by DSHE. Student already completes their 4th-week Assignment. So Government published Class 6 Islam Assignment. We discuss all week’s assignment Questions. In addition, we provide you correct upodesh and help to solve the 5th week Math Question Solution. So stay with us Upodesh.com. Let’s Start the fifth Week’s Assignment Question & solution.

Class 9 Islam Assignment & All Subject Solution

Bangla, English, Math, Islam & Moral Studies, Hinduism, Buddhism, Christianity Religion, Information Communication Technology (ICT), Social Science. Class Six Islam Assignment 7th Week & Answer.

অষ্টম শ্রেণীর ইসলাম এসাইনমেন্ট ২০২১

Class-9-Islam

Class 9 Islam Assignment, 10th Week & Answer

ভূমিকা :

মহান আল্লাহ এ পৃথিবীকে খুব সুন্দর ও সুশৃঙ্খলভাবে সৃষ্টি করেছেন। ইসলামের সর্বপ্রথম বিষয় হল আকাইদ। ইসলামের মূল বিষয় গুলাের উপর মনেপ্রাণে বিশ্বাস করাকেই আকাইদ বলা হয়। আকাইদের সবগুলাে বিষয়ের উপর বিশ্বাস স্থাপন করলে মানুষ ইসলামে প্রবেশ করতে পারে।

তাওহিদের পরিচয়:

তাওহিদ শব্দের অর্থ একত্ববাদ। ইসলামি শরিয়তের পরিভাষায় আল্লাহ তা’য়ালাকে এক ও অদ্বিতীয়। হিসেবে স্বীকার করে নেওয়াকে তাওহিদ বলা হয়। তাওহিদের মূল কথা হলাে – আল্লাহ তা’য়ালা এক ও অদ্বিতীয়। তিনি তার সত্তা ও গুণাবলিতে অদ্বিতীয়। | তিনিই প্রশংসা ও ইবাদতের একমাত্র মালিক। তার তুলনীয় কেউ নেই।

আল্লাহ তা’য়ালা বলেন- ” কোনাে কিছুই তার সদৃশ নয়।” (সূরা আশ-শুরা, আয়াত ১১) আল্লাহ তা’য়ালাকে সৃষ্টিকর্তা, পালনকর্তা, রিজিকদাতা ও ইবাদতের যােগ্য এক ও অদ্বিতীয় সত্তা হিসেবে বিশ্বাসের নামই তাওহিদ।

সৃষ্টিজগতের বাস্তব উদাহরণ:

আমাদের এই বিশ্বজগৎ আকার ও আয়তনে অনেক বড়। আমাদের পৃথিবী এর সামান্য অংশমাত্র। বড় বড় গ্রহ, নক্ষত্র, ছায়াপথ, নীহারিকা , গ্যালাক্সি এ বিশ্বজগতে বিরাজমান। এগুলাের প্রত্যেকটি সুশৃংখল ভাবে ঘুরছে। কোনােটি এর নির্ধারিত নিয়মের বাইরে যাচ্ছে না। আমাদের পৃথিবী কত সুন্দর। এতে রয়েছে বিশাল আকাশ, বিস্তৃত মাঠ, বড় বড় পাহাড় পর্বত, প্রবাহমান নদী নালা , সাগর মহাসাগর। আল্লাহ তা’আলাই এসব কিছুর সৃষ্টিকর্তা

ও নিয়ন্তা। মহাজগতের নিয়ম-শৃঙ্খলা তারই দান। | পৃথিবীর সকল কিছুর স্রষ্টাও তিনিই। আর পশু পাখি, গাছপালা সবকিছু নিয়ন্ত্রক তিনি। তিনিই সবকিছু করেন। বরং তিনি যা ইচ্ছা করেন তাই হয়। এ সবকিছুতে যদি একের বেশি নিয়ন্তা থাকতাে, তবে নানা রকম বিশৃঙ্খলা দেখা দিত।আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে বলেছেন, “যদি আকাশ মন্ডলী ও পৃথিবীতে, আল্লাহ ব্যতীত বহু ইলাহ থাকতাে, তবে উভয়েই ধ্বংস হয়ে যেত।” (সূরা আল -আম্বিয়া, আয়াত ২২)। একাধিক স্রষ্টা থাকলে তারা তাদের সৃষ্টি কে নিয়ে আলাদা হয়ে যেতেন। যেমন আগুনের স্রষ্টা আগুন নিয়ে পৃথক হয়ে পড়তেন। অতঃপর সমস্ত কিছুকে আগুন দ্বারা

জ্বালিয়ে দিয়ে তার নিজ ক্ষমতার প্রকাশ করতেন। তেমনি মহাসাগরের স্রষ্টা সারা পৃথিবী তার সৃষ্টি দ্বারা ডুবিয়ে দিতে চাইতেন। এভাবে স্রষ্টাগণ নিজ নিজ সৃষ্টি দ্বারা অন্যের উপর বিজয়ী হতে চাইতেন । ফলে আমাদের অস্তিত্ব বিলুপ্ত হয়ে যেত। পৃথিবীর সকল কিছুই ধ্বংস হয়ে যেত।

আল্লাহ তায়ালা সকল গুণের আধার। সকল গুণ তার মধ্যে পূর্ণমাত্রায় বিদ্যমান। তিনি সৃষ্টিকর্তা। বিশ্বজগৎ ও এর মধ্যে যা কিছু রয়েছে সবই তার সৃষ্টি । তিনি রিযিকদাতা। সকল সৃষ্টিই রিজিকের জন্য তার মুখাপেক্ষী। তিনিই সর্বশক্তিমান সবকিছুর নিয়ন্ত্রক। সকলকিছুই তার পরিচালনায় সুন্দর ও সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালিত হচ্ছে। এককথায় তিনি সর্বগুণে

গুণান্বিত । তার গুণের কোনাে সীমা নেই। সুন্দর ও পবিত্র নামসমূহ একমাত্র তারই জন্য নির্ধারিত। তার কতিপয় গুণবাচক নাম হলাে -রহিম (পরম করুণাময়), জাব্বার (প্রবল), গাফফার (অতি ক্ষমাশীল), বাসির (সদ্রষ্টা), সামিউ (সর্বশ্রোতা), আলিউ (মহান),হাফিয (মহারক্ষক) ইত্যাদি।বস্তুত আল্লাহ তায়ালা তার সত্তা ও গুণাবলিতে এক ও অতুলনীয়। তার কোনাে শরিক নেই। সকল প্রশংসা তারই জন্য, ইবাদতের যােগ্য সত্তা একমাত্র তিনিই।

উপসংহার :

এসব বর্ণনা এ কথাই প্রমাণ করে যে, ইলাহ মাত্র একজনই। আর তিনি হলেন মহান আল্লাহ তা’য়ালা । তিনি সকল কিছুর স্রষ্টা, নিয়ন্ত্রক ও পালনকর্তা। তার হুকুম ও নিয়মেই সবকিছু পরিচালিত হয়। কোন সৃষ্টিই এ নিয়মের ব্যতিক্রম করতে পারে না। এসব কাজে তিনি একক ও অদ্বিতীয়। আন্তরিকভাবে এরূপ বিশ্বাসের নামই হচ্ছে তাওহীদ বা একত্ববাদ।

Conclusion

In Other words, our efforts in creating thematic assignments ensure that everyone benefits. As a result, this is our activity in creating assignments for classes six to nine. Hopefully, we have been able to solve all the assignments very easily and properly. In order to, we will continue such activities in the future. so we hope you like it.

Stay tuned with us.🙌

For more query ask us without any hesitation: Click Here!!😊

https://m.me/nhasibul

https://m.me/consciously.unconscious.7

Updated: September 19, 2021 — 5:42 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *