SSC 3rd Week Geography & Environment Assignment Answer

Originally posted on July 26, 2021 @ 5:43 am

Assignments have published as per SSC Exam 2021 new short syllabus. SSC Exam 2021 Geography and Environment 3rd Week Assignment. Geography and Environment 3rd Week Assignment has published. ২০২১ এসএসসি পরীক্ষার তৃতীয় সপ্তাহের ভূগোল ও পরিবেশ অ্যাসাইনমেন্ট l SSC Exam 2021 Second Week Business Enterprise Assignment with an answer. দশম শ্রেণীর তৃতীয় সপ্তাহের ভূগোল ও পরিবেশ অ্যাসাইনমেন্ট l To repeat, SSC Class 10 Geography and Environment Third Week Assignment 2021 With Answer.

Contents

Geography And Environment SSC Exam 2021(3rd Week) Assignment

The current year’s SSC test will held in November. Furthermore, for that reason, another short prospectus has organized. Furthermore, as needs be, SSC competitors will present an aggregate of 24 tasks double seven days. That implies a sum of 24 tasks in twelve weeks should submit by the SSC examinees of 2021. As such, According to the new short prospectus, in 24 weeks tasks of 12 weeks, there is no compelling reason to do any task including Bangla English and the fourth subject.

Moreover, The training framework was disturbed for the current year because of the pandemic circumstance. Thus, instructive establishments couldn’t lead any last assessments. In the current setting, the Ministry of Education has taken uncommon measures to keep the instruction framework dynamic. Accordingly, the Bangladesh Board of Education has chosen, that understudies should submit tasks rather than tests. Thus, reliably they need to complete in any occasion 3 jobs in three subjects.

SSC Exam 2021 Geography & Environment 3rd Week Assignment

The pandemic circumstance in the nation has taken an awful turn. In the interim, occasions in instructive establishments are expanding because of the weakening pandemic condition. Service of Education compelled to close instructive establishments to stay away from wellbeing dangers to understudies due to falling apart pandemic conditions. Following this, the Ministry of Education starts tasks to keep the optional understudies occupied with their examinations. What’s more, later it chose to begin a task or timetable work to proceed with advanced education. The Director-General of the Department of Secondary and Higher Secondary Education said that the quantity of understudies will be given in this task. SSC Business Entrepreneurship first Week Assignment 2021.

Task or Evaluation Guidelines have distributed for the up-and-comers of Higher Secondary Examination 2020 considering the fruitful contention of ‘Adjustment’. Tasks have distributed by the Department of Secondary and Higher Secondary Education(dshe.gov.bd).

SSC Geography and Environment 3rd Week Assignment 2021

Likewise, The training framework disturbed for the current year because of the pandemic circumstance. Subsequently, instructive establishments couldn’t direct any last assessments. In the current setting, the Ministry of Education has taken uncommon measures to keep the instruction framework dynamic. In this way, the Bangladesh Board of Education has chosen, that understudies should submit tasks rather than tests. Thus, reliably they need to complete it.

এসএসসি ভূগোল ও পরিবেশ অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ

SSC Class 10 Geography And Environment 3rd Week Assignment 2021 With Answer

SSC 3rd Week Geography & Environment Assignment Answer

সূর্যকে পরিক্রমণকালে পৃথিবীর চারটি অবস্থায় বাংলাদেশে বিরাজমান ঋতু পরিবর্তন।

(ক) উত্তরঃ ঋতু পরিবর্তনের কারণ :

পৃথিবীর ঋতু পরিবর্তনের কারণ গুলাে হচ্ছে:

(১) পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে দিবারাত্রির তারতম্যের জন্য উত্তাপের হ্রাস-বৃদ্ধি:

পৃথিবীর ঘূর্ণনের কারণে সূর্য পৃথিবীর যে গােলার্ধের নিকট অবস্থান করে তখন সেই গােলার্ধে দিন বড় এবং রাত ছােট। তার বিপরীত গােলার্থে রাত বড়, দিন ছােট। পৃথিবী দিনের বেলায় তাপ গ্রহণ করে ফলে ভূপৃষ্ঠ উত্তপ্ত হয় এবং রাতের বেলায় বিকিরণ করে শীতল হয়। তখন একটি স্থানে বড় দিনে ভুপৃষ্ঠ যে তাপ গ্রহণ করে ছােট রাতে সে তাপ পুরােটা | বিকিরণ করতে পারে না। ঐ স্থানে সঞ্চিত তাপের কারণে আবহাওয়া উষ্ণ হয় এবং তাতে গ্রীষ্মকালীন আবহাওয়া পরিলক্ষিত হয়। বিপরীত গােলার্ধেরাত বড় এবং দিন ছােট হওয়াতে দিনের বেলায় যে তাপ | গ্রহণ করে রাতের বেলায় সব তাপ বিকিরণ কত্রে ঠান্ডা অনুভূত হয় তখন শীতকাল।

(২) পৃথিবীর গােলাকার আকৃতি :

পৃথিবী গােল, তাই পৃথিবীর কোথাও সূর্যরশ্মি লম্বভাবে পড়ে আবার কোথাও তির্যকভাবে পড়ে। ফলে। তাপমাত্রার পার্থক্য হয় এবং ঋতু পরিবর্তিত হয়।

(৩) পৃথিবীর উপবৃত্তাকার কক্ষগণ:

পৃথিবীর আবর্তন পথ উপবৃত্তাকার তাই বছরের বিভিন্ন সময় সূর্য থেকে পৃথিবীর দূরত্ব কমবেশি হয়। এতে তাপমাত্রার পার্থক্য হয়, তাই ঋতু পরিবর্তিত হয়।

(৪) পৃথিবীর কক্ষপথে কৌণিক অবস্থান :

সূর্যকে পরিক্রমণের সময় নিজ কক্ষতলের সঙ্গে পৃথিবীর মেরুরেখা সমকোণে না থেকে ৬৬.৫° কোণে | হেলে একই দিকে অবস্থান করে। এতে বছরে একবার পৃথিবীর উত্তর মেরু ও দক্ষিণ মেরু সূর্যের নিকটবর্তী হয়। যে গােলার্ধ যখন সূর্যের দিকে ঝুঁকে থাকে সে গােলার্ধে সূর্য লম্বভাবে কিরণ দেয়। তার তাপমাত্রা তখন বেশি হয় এবং দূরে গেলে তাপমাত্রা কম হয়। ফলে ঋতু পরিবর্তন ঘটে।

(৫) বার্ষিক গতির কারণে:

পৃথিবীর বার্ষিক গভির জন্য সূর্যকিরণ বিভিন্ন স্থানে কমবেশি পড়ার কারণে বায়ুমন্ডলের তাপমাত্রার পার্থক্য ঘটছে। ফলে বিভিন্ন স্থানে জলবায়ুর বিভিন্ন হয়। একে তু পরিবর্তন বলে।

(খ) উত্তরঃ পৃথিবীর চারটি অবস্থা :

আমরা জানি, পৃথিবীতে চারটি ঋতু গ্রীষ্মকাল, শরৎকাল, শীতকাল ও বসন্তকাল। সূর্যকে পরিক্রমণকালে পৃথিবীর চারটি অবস্থা থেকে ঋতু পরিবর্তনের ব্যাখ্যা পাওয়া যায়।

১. উত্তর গােলার্ধে গ্রীষ্মকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে শীতকাল:

২১ এ মার্চের পর থেকে পৃথিবী তার নিজ কক্ষপথে | এগিয়ে চলার সঙ্গে সঙ্গে উত্তর মেরু ক্রমশ সূর্যের | দিকে হেলতে থাকে। এর সঙ্গে সঙ্গে যত দিন যায় | তত উত্তর মেরুতে আলােকিত অংশ বাড়তে থাকে।

এভাবে ২১ এ জুনে গিয়ে সূর্য কর্কটক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দিতে থাকে। ফলে ২১ জুন। উত্তর গােলার্ধে বড় দিন এবং ছােট রাত হয়। ঐ দিনই সূর্যের উত্তরায়ণের শেষ এবং তার পরের দিন থেকে পুনরায় সূর্য দক্ষিণ দিকে আসতে থাকে। দিন বড় হওয়ার কারণে উত্তর গােলার্ধে ২১ জুনের দেড় মাস পূর্ব থেকেই গ্রীষ্মকাল শুরু হয় এবং পরে দেড় মাস পর্যন্ত গ্রীষ্মকাল স্থায়ী হয়। এই সময়ে দক্ষিণ গােলার্ধে ঠিক বিপরীত অবস্থা দেখা যায় অর্থাৎ শীতকাল। অনুভূত হয়। এ সময় সূর্য হেলে থাকার কারণে এ গােলার্ধে সূর্য কম সময় ধরে কিরণ দেয়। ফলে দিন ছােট এবং রাত বড় হয়। দক্ষিণ গােলার্ধে এ সময়কে শীতকাল বলে।

২. উত্তর গােলার্ধে শরৎকাল দক্ষিণ গােলার্ধে বসন্তকাল :

২১ জুন থেকে দক্ষিণ মেরু সুর্যের দিকে হেলতে থাকে । উত্তর গােলার্ধের অংশগুলাে কম কিরণ পেতে থাকে এবং দক্ষিণ গােলার্ধের অংশগুলাে বেশি কিরণ পেতে থাকে। এভাবে ২৩ সেপ্টেম্বর পূর্ব নিরক্ষরেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। তাই এ সময় পৃথিবীর সর্বত্র দিন

রাত সমান হয়। দিনের বেলায় যে তাপ আসে রাত সমান হওয়ায় একই পরিমাণ তাপ বিকিরিত হওয়ার সুযােগ পায়। ফলে আবহাওয়া তে ঠান্ডা গরমের পরিমাণ সমান থাকে। এই সময় উত্তর গােলার্ধে শরৎকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে বসন্তকাল বিরাজ করে | ২৩ সেপ্টেম্বরের দেড় মাস আগে থেকেই উত্তর | গােলার্ধে শরৎকালের সূচনা হয় এবং দেড় মাস পর পর্যন্ত এই শরৎকাল স্থায়ী থাকে।

৩. উত্তর গােলার্ধে শীতকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে গ্রীষ্মকাল:

২৩ সেপ্টেম্বরের পর দক্ষিণ গােলার্ধ ক্রমশ সূর্যের দিকে হেলতে থাকে। এই সময় দক্ষিণ গােলার্ধ সূর্যের কাছে আসতে থাকে। উত্তর গােলার্ধ দূরে সরতে থাকে । ফলে দক্ষিণ গােলার্ধে সূর্য লম্বভাবে এবং উত্তর গােলার্ধে কোণ করে কিরণ দিতে থাকে। এতে উত্তর।

গােলার্ধে দিন ছােট ও দক্ষিণ গােলার্ধে দিন বড় এবং রাত ছােট হতে থাকে। এর মধ্যে ২২ এ ডিসেম্বর সূর্য পূর্ব মকরক্রান্তির উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। সেই দিন উত্তর গােলার্ধে ছােট দিন ও বড় রাত হওয়াতে শীতকাল। ঐ দিনই সূর্বের দক্ষিণায়নের শেষ এবং তার পরের দিন থেকে পুনরায় সূর্য উত্তর দিকে আসতে থাকে। ২২ ডিসেম্বরের দেড় মাস পূর্বে উরুর গােলার্ধে শীতকাল শুরু হয় এবং পরের দেড় মাস পর্যন্ত বিরাজ করে। এই সমটাতে দক্ষিণ গােলার্ধে গ্রীষ্মকাল।

৪. উত্তর গােলার্ধে বসন্তকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে শরৎকাল :

পৃথিবী তার কক্ষপথে চলতে চলতে ২২ ডিসেম্বরের পর থেকে ২১ মার্চ পর্যন্ত এমন স্থানে ফিরে আসে যখন সূর্য নিরক্ষরেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দিতে থাকে। ফলে ২১ এ মার্চ পৃথিবীর সর্বত্র দিনরাত্রি সমান হয়। দিনের বেলায় সূর্যকিরণের কারণে ভূপৃষ্ঠের বায়ুস্তর ।গরম হয় এবং রাত্রিবেলায় বিকিরিত হয়ে ঠান্ডা হয়। এই সময় উত্তর গােলার্ধে বসন্তকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে শরৎকাল। ২১ মার্চ পৃথিবীর সর্বত্র দিনরাত্রি সমান হয় এবং ঐ দিনটিকে বাসন্ত বিষুব বা মহাবিষুব বলে।

 

(গ) উত্তরঃ

19

(ঘ) উত্তরঃ বাংলাদেশে বিরাজমান ঋতু:

পৃথিবীতে চারটি ঋতু গ্রীষ্মকাল, শরৎকাল, শীতকাল ও বসন্তকাল। সূর্যকে পরিক্রমণকালে পৃথিবীর চারটি অবস্থা থেকে ঋতু পরিবর্তনের ব্যাখ্যা পাওয়া যায়।

 

Conclusion

In Other words, our endeavors in making topical tasks guarantee that everybody benefits. Thus, this is our movement in making tasks for classes six to nine. Ideally, we have had the option to tackle every one of the tasks effectively and appropriately. To, we will proceed with such exercises later on. So we trust you like it. Stay tuned with us. For more query ask us without any hesitation: Click Here.

https://m.me/nhasibul

https://m.me/consciously.unconscious.7

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *