SSC 5th Week Science Assignment

Originally posted on August 11, 2021 @ 7:07 pm

SSC Science 5th Week ( বিজ্ঞান ) Assignment for Class 10. SSC Science 5th Week Science Assignment Answer, পঞ্চম সপ্তাহ বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্টের উত্তর, 5th Week Assignment Answer Science. In other words, Science Assignment With Answer। বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট l Similarly, Science 5th Week Science Assignment 2021.  বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১. Moreover, ssc Biggan  Assignment 2021. SSC Biggan 5th Week Assignment. school Biggan assignment 5th week 2021.

5th Week Science (বিজ্ঞান) Assignment 2022 

Assignment or Evaluation Guidelines have published for the candidates of Higher Secondary Examination 2020 in light of the successful argument of ‘Rearrangement’. Assignments have published by the Department of Secondary and Higher Secondary Education(dshe.gov.bd). The pandemic situation in the country has taken a terrible turn. Meanwhile, holidays in educational institutions are increasing due to the deteriorating pandemic condition. Ministry of Education is forced to close educational institutions to avoid health risks to students due to deteriorating pandemic conditions. Following this, the Ministry of Education initiates assignments to keep the secondary students engaged in their studies. And later it was decided to start an assignment or schedule work to continue higher education. The Director-General of the Department of Secondary and Higher Secondary Education said that the number of students will be given in this assignment. SSC Science 2nd Week Assignment 2021.

উল্লেখ্য, সাপ্তাহিক অ্যাসাইনমেন্টের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের নম্বর দেওয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে l মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেছেন এবারের অ্যাসাইনমেন্টে শিক্ষার্থীদের নম্বর দেওয়া হবে l

SSC 5th Week Science Assignment 

In addition, The education system disrupted this year due to the pandemic situation. As a result, educational institutions could not conduct any final examinations. In the current context, the Ministry of Education has taken special measures to keep the education system active.  Therefore, the Bangladesh Board of Education has decided, that students will have to submit assignments instead of exams. So, consistently they need to finish it.

 বিজ্ঞানের অ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ

5

অ্যাসাইনমেন্টের উত্তর

পানি দূষণ:

পানির অপর নাম জীবন। পানি ছাড়া জীবন বাঁচতে পারেনা। তবে দূষিত পানি মানুষের তথা জীব জগতের জন্য ক্ষতিকর। পানি নানাভাবে দূষিত হচ্ছে। পানির ব্যবহার ব্যাপক ও সর্বত্র। আমরা পানি ব্যবহার করে থাকি তৃষ্ণা মেটাতে, পরিষ্কার করার কাজে। নদীনালা এবং পুকুর হচ্ছে আমাদের মিঠা পানির প্রধান উৎস। বিভিন্ন কারণে পানি ব্যবহার অনুপােযােগী হয়ে পড়তে পারে। মানুষসহ অন্যান্য উদ্ভিদ ও প্রাণীর জন্য নিরাপদ নয়, পানির এমন অবস্থাকে পানি দূষণ বলা হয়।

আমার এলাকার পানির উৎসগুলাের তালিকাসহ একটি উৎসের পানি দূষণের কারণ:

আমার এলাকার পানির প্রধান উসগুলাে হচ্ছে নদী, পুকুর, খাল-বিল এবং টিউবওয়েল। এই উৎসগুলাের মধ্যে আমার এলাকার নদীর পানি দূষণের কারণ নিম্নে উল্লেখ করা হলাে:

বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। আমার এলাকার বেশিরভাগ মানুষ মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক সার, কীটনাশক ইত্যাদি দেওয়ার ফলে সেগুলাে বৃষ্টির সাথে মিশে নদীনালা, পুকুরের পড়ে পানিকে দূষিত করে। তাছাড়া গ্রামের অধিকাংশ মানুষ নদীতে গােসল করে এবং গৃহপালিত গরু-ছাগলকে নদীতে গােসল করানাের ফলে নদীটির পানি দূষিত হচ্ছে ।

এলাকার লােকজন নদীতে কাপড়-চোপড় ধােয়ার কারণের নদীর পানি দূষিত হচ্ছে। তাছাড়া এই নদীর পানি দূষণের আরাে একটি কারণ হচ্ছে প্রকৃতি। বন্যা ও জলােচ্ছ্বাসে মানুষ ও পশু পাখির মলমূত্র পানিতে মিশে এই নদীকে দূষিত করে।

উদ্ভিদ ও প্রাণীর উপর পানি দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব:

নিচে উদ্ভিদ ও প্রাণীর উপর পানির দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব তথা ফলাফল উল্লেখ করা হলাে:

১। পানিতে পচনশীল জৈব পদার্থের পরিমাণ যত বেশি হয়, সেগুলিকে বিশ্লিষ্ট (decompose) করার জন্য তত অধিক পরিমাণ অক্সিজেনের প্রয়ােজন হওয়ায় পানিতে দ্রবীভূত অক্সিজেনের পরিমাণ হ্রাস পায়, যা জলজ প্রাণীর জীবন ধারণের জন্য। খুবই ক্ষতিকর। এমতাবস্থায় জলজ জীবের মৃত্যুও ঘটতে পারে।

২। বিভিন্ন রােগ সৃষ্টিকারী জীবাণু দ্বারা দূষিত পানি ব্যবহারের ফলে মানুষের কলেরা, টাইফয়েড, ডাইরিয়া, আমাশয়, পরিপাকতন্ত্র প্রদাহ, যকৃত প্রদাহ ইত্যাদি বিভিন্ন রােগের সৃষ্টি হয়।

৩। পানিতে অধিক পুষ্টি উপাদানের (উদ্ভিদ পুষ্টি উপাদান) উপস্থিতিতে শৈবাল ও অন্যান্য আগাছা জাতীয় উদ্ভিদ ব্যাপক হারে জন্মায় এবং এদের পচনের ফলে পানি দূষিত হয়। এভাবে পানির দূষণে জলজ প্রাণীর বাসের অনুপযােগী পরিবেশ সৃষ্টি হয়, এমনকি জলজ প্রাণীর মৃত্যুও ঘটতে পারে।

৪। কৃত্রিম জৈব পদার্থ দ্বারা দূষিত পানি শিশু, সংবেদনশীল উদ্ভিদ এবং ক্ষেত্রবিশেষ জলজ প্রাণীর উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

৫। দীর্ঘ সময় ধরে অপরিবর্তনশীল কীটনাশকের অংশ বিশেষ (যেমন-ডিডিটি) কোন কোন মাত্রায় মাছ ও অন্যান্য জলজ জীবের জন্যে প্রত্যক্ষভাবে এবং খাদ্যচক্রে মাধ্যমে মৎস্যভুক পাখি ও মানুষের জন্য ক্ষতিকর।

৬। ক্ষতিকর মাত্রার তেজস্ক্রিয় পদার্থযুক্ত পানি ব্যবহার করলে, পানিতে সাঁতার কাটলে, তেজস্ক্রিয়তাযুক্ত মাছ খেলে, কলকারখানার তেজস্ক্রিয়াযুক্ত পানি ব্যবহার করলে মানুষের ক্যান্সারসহ নানা রকম জটিলরােগ সৃষ্টি হতে পারে এবং এতে বিকলাঙ্গ শিশুর জন্ম হতে। পারে।

৭। তেল দ্বারা পানি দূষণের ফলে আমিষ জাতীয় খাদ্য সরবরাহকারী মাছ ও ঝিনুক জাতীয় প্রাণী এবং অন্যান্য জলজ জীব তেলের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং অনেক সময় মারাও যেতে পারে। তেল দ্বারা দূষিত পানিতে চিংড়ির বংশবৃদ্ধি কমে যায়।

৮। পানিতে মিশ্রিত ভারী ধাতু, যেমন- পারদ, সীসা, আর্সেনিক প্রভৃতি প্রাণীদেহে সঞ্চিত হয়ে বিভিন্ন রােগের সৃষ্টি করে, অনেক ক্ষেত্রে প্রাণীর মৃত্যু ঘটে। পারদ মানব দেহে প্রবেশ করলে মস্তিষ্কের ক্ষতিসাধন হয়।

পানির উৎসগুলাে দূষণমুক্ত রাখতে প্রস্তাবনা: নিচে পানি দূষণ থেকে প্রতিকারের উপায়গুলি উল্লেখ করা হলাে:

১। শহর ও বন্দরের আবর্জনা ও নর্দমার বর্জ্য নদ-নদী, খাল-বিলে গড়িয়ে পড়ার আগে শােধন করা উচিত।

২। নদীর পানির স্বাভাবিক প্রবাহ অব্যাহত রাখা অত্যাবশ্যক। নদীর তলদেশে যাতে পলি জমতে না পারে সেজন্য নিয়মিত ড্রেজিং প্রয়ােজন ৷

৩। কৃষি জমিতে জৈব স্যার এবং পরিমিত পরিমাণে রাসায়নিক সার প্রয়ােগ করা উচিত। ফলে অতিরিক্ত সার জলাশয়ের পানিকে দূষিত করতে পারবে না।

৪। শিল্প ও কল-কারখানা বর্জ্য পাশ্ববর্তী জলাশয় ও নদ-নদীতে পড়ার পূর্বে শােধন করা প্রয়ােজন।

৫। খােলা মাটিতে রাসায়নিক দ্রব্য, রং অথবা গাড়ীর তেল কখনও ফেলা উচিত নয়। কেননা এ সমস্ত দ্রব্য মাটি চুয়িয়ে ভূ-গর্ভস্থ পানি দূষিত করে।

৬। কীটনাশক, ছত্রাকনাশক ও আগাছানাশক এর যথেচ্ছা ব্যবহার বন্ধ করা উচিত।

৭। পারমাণবিক বিস্ফোরণ ঘটানাে বন্ধ করা ও তেজস্ক্রিয় পদার্থের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ প্রয়ােজন।

৮। সর্বস্তরে মানুষকে পানি দূষণ সম্পর্কে সঠিক ধারণা দেওয়া প্রয়ােজন এবং এর প্রতিক্রিয়ার ভয়াবহ চিত্র জনসাধারণের নিকট তুলে ধরা প্রয়ােজন। প্রয়ােজনবােধে ফেইসবুক, ওয়াটসঅ্যাপ, টুইটার প্রভৃতি সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যম তথাপি জাতীয় প্রচার মাধ্যমগুলাে ব্যবহার করে জনগণকে সচেতন ও সর্তক করা যেতে পারে।

Conclusion

In Other words, our efforts in creating thematic assignments ensure that everyone benefits. As a result, this is our activity in creating assignments for classes six to nine. Hopefully, we have been able to solve all the assignments very easily and properly. In order to, we will continue such activities in the future. so we hope you like it.

Updated: September 19, 2021 — 5:39 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *