SSC 4th Week Civics Assignment With Answer

Originally posted on August 27, 2021 @ 1:13 pm

Civics 4th-week assignment of 2021 SSC examinees has released. Similarly, Civics 4th Week Assignment SSC Exam 2021 With Answer. এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ চতুর্থ সপ্তাহের পৌরনীতি অ্যাসাইনমেন্ট l SSC Exam 2021 Fourth Week Civics Assignment. ৪র্থ সপ্তাহের পৌরনীতি আসাইনমেন্টের সমাধান l এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ ৪র্থ সপ্তাহের পৌরনীতি অ্যাসাইনমেন্ট l Likewise, 4th Week Pouroniti Assignment SSC Exam 2021 With Answer. SSC 4th Week Civics Assignment.

Assignment activities for SSC Exam 2021 candidates have started anew. And it is based on a short syllabus. Assignment activities have introduced in a new way in preparation for this year’s SSC exams. In addition, the Department of Secondary and Higher Education has published a three-week assignment in the first phase. Students have to do assignments in twelve weeks for the SSC exam. SSC candidates have to do a total of twenty-four assignments twice a week. Assignment activities have introduced for taking SSC exams in a special way to keep the education system running mainly for coronavirus situations.

Civics 4th Week Assignment SSC 2021

In addition, these assignments need to do on three group-based elective subjects. Assignments will take on only three group-based electives. However, there is no need to do assignments in the required subjects including Bangla, English, and the fourth subject. On the whole, Assignment activities will continue among group-based information topics. Students are being urged to take these weekly assignments seriously. Candidates have to submit assignments twice a week based on the group. This week has group-based assignments like every other week. This week has History of Bangladesh and World Civilization, Civics and Economics. Poroniti Assignment 2021.

SSC 4th Week Civics Assignment SSC Exam 2021

For group-based assignments, assignments have to submit in three subjects of the Arts department. Those are History of Bangladesh and World Civilization, Economics, Civics. Students have asked to complete the assignment or submit it to their own educational institution. Due to the coronavirus pandemic situation, all educational institutions in the country have closed for a long time. However, to continue the learning process of the students, Sangsad Bangladesh Television is continuously broadcasting class activities. And the educational institutions are conducting online class activities on their own initiative as well.

As a result of these activities, the educational activities have somewhat successful, but the preparation for the board examinations has not completed. In addition, due to repeated deterioration of the pandemic condition, the scope of the schedule during the board examination has repeatedly delayed. So the government determined to take the upcoming SSC exam. The government has taken various programs to conduct limited examinations. Students are required to complete two assignments per week in three elective subjects on a group basis. On the occasion of SSC Exam 2021, students have to complete and submit twenty-four assignments in 12 weeks. Thus the first second third and currently fourth-week assignment activities going on.

Probable Date of SSC Exam 2021

This year’s SSC exam 2021 is likely to start in the first week of November. The Department of Secondary and Higher Education (dshe.gov.bd) has directed to complete 12 weeks of assignment activities before November.

এসএসসি পৌরনীতি অ্যাসাইনমেন্ট  বা নির্ধারিত কাজ

SSC Class 10 Civics 4th Week Assignment With Answer

রাষ্ট্রের ধারণা:

রাষ্ট্রবিজ্ঞানের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে প্রদান করেছেন। রাষ্ট্রবিজ্ঞানী এরিস্টটল রাষ্ট্রের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে বলেন, “পরিপূর্ণ ও স্বনির্ভর জীবন গঠনের উদ্দেশ্যে কতিপয় পরিবার ও গ্রামের সমন্বয়ে গঠিত সংগঠনই রাষ্ট্র।” প্রাচীন চিন্তাবিদদের রাষ্ট্র সংক্রান্ত আলােচনা মূলত আদর্শ ভিক্তিক ও নগর রাষ্ট্র কেন্দ্রিক। উড্রো উইলসনের মতে, “কোন নির্দিষ্ট ভূ-খন্ডে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য সংগঠিত জনসমষ্টিকে রাষ্ট্র বলে।”

রাষ্ট্র সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা লাভ করা যায় অধ্যাপক গার্নারের প্রদত্ত সংজ্ঞা থেকে। তাঁর মতে, “রাষ্ট্র হলাে কম বা বেশী এমন একটি জনসমাজ যারা একটি নির্দিষ্ট ভূ-খন্ডে স্থায়ীভাবে বসবাস করে, বাইরের নিয়ন্ত্রণ থেকে যুক্ত এবং যাদের একটি সুসংগঠিত সরকার আছে যার প্রতি অধিকাংশ অধিবাসীই সাধারণত আনুগত্য পােষণ করে।”

এছাড়া, রাষ্ট্র বিজ্ঞানী হ্যারল্ড লাস্কি বলেন, “রাষ্ট্র একটি ভৌগােলিক সমাজ যা শাসক শাসিতের মধ্যে বিভক্ত এবং সকল সংস্থার উপর স্বীয় কর্তৃত্ব দাবি করে।” বন্টুসলির মতে কোন নির্দিষ্ট ভূ-খন্ডে রাজনৈতিকভাবে সংগঠিত জনসমাজই রাষ্ট্র। সম্প্রতি মার্কিন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী আলমন্ড ও কোলম্যান তাঁদের ‘Politics of Developing Areas’ গ্রন্থে রাষ্ট্র’ শব্দটির পরিবর্তে রাজনৈতিক ব্যবস্থা’ কথাটি ব্যবহার করেছেন। তাদের মতে রাজনৈতিক ব্যবস্থা হলাে সমাজের বৈধ শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বা পরিবর্তন আনয়নকারী ব্যবস্থা।

রাষ্ট্র গঠনের উপাদানসমূহ:

রাষ্ট্রের সংজ্ঞা নিয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞানীদের মধ্যে ভিন্নতা থাকলেও, রাষ্ট্রের চারটি | মৌলিক উপাদানের ব্যাপারে সবাই একমত। অধ্যাপক গার্নারের সংজ্ঞা বিশ্লেষণ করলে আমরা চারটি উপাদান লক্ষ্য করি যথা:- জনসমষ্টি; নির্দিষ্ট ভূ-খন্ড; সরকার; সার্বভৌমত্ব। জনসমষ্টি: রাষ্ট্রের অন্যতম প্রধান উপাদান হল জনসমষ্টি। জনসমষ্টি ছাড়া রাষ্ট্রকে কল্পনা করা যায় না। কোন ভূ-খন্ডে, শুধুমাত্র স্থলভাগকে বুঝায় না। রাষ্ট্রের অভ্যন্তরে নদ-নদী, রাষ্ট্রের সীমানায় প্রবাহিত আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সাগরমহাসাগরের জলসীমা এবং উপরস্থ আকাশ সীমাকে বুঝায়।

রাষ্ট্রের আয়তন বড় হতে পারে। আবার ছােটও হতে পারে। রাষ্ট্রের ভূ-খন্ড অখন্ড হতে পারে আবার খন্ডিত হতে পারে। এমনকি কতকগুলাে দ্বীপের সমষ্টি হতে পারে। সরকার রাষ্ট্রের অন্যতম উপাদান হল সরকার। সরকার বলতে সেই সুগঠিত সংগঠনকে বুঝায় যারা আইন প্রণয়ণ, শাসন ও বিচার বিভাগীয় কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট। সরকার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করে এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষা করে। সরকার শাসনতন্ত্রের মাধ্যমে বৃহৎ জনগােষ্ঠীকে | নিয়ন্ত্রণ করে। সরকার রাষ্ট্রের ইচ্ছাকে কার্যে পরিণত করে থাকে। আধুনিক গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সরকার হচ্ছে জনগণের প্রতিনিধি। সার্বভৌমত্ব: রাষ্ট্রের সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ ও মূল্যবান উপাদান হল সার্বভৌমত্ব। রাষ্ট্রের চরম ও সর্বোচ্চ ক্ষমতাই হলাে সার্বভৌমত্ব। সার্বভৌমত্বের কারণেই একটি জনসমাজ রাষ্ট্রে পরিণত হয়। সার্বভৌম ক্ষমতার বলে রাষ্ট্র এর অধীনস্তসকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের উপর আদেশ নির্দেশ প্রদান করতে পারে। সার্বভৌম ক্ষমতার দুটি দিক আছে অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক।

রাষ্ট্রের উৎপত্তি:

ঐশ্বরিক মতবাদ ঐশ্বরিক বা বিধাতার সৃষ্টি মতবাদ রাষ্ট্রের উৎপত্তি সংক্রাড় মতবাদের মধ্যে সবচেয়ে পুরাতন। এ মতবাদের মূল কথা হলাে, রাষ্ট্রের উৎপত্তি হয়েছে ঈশ্বর বা বিধাতার ইচ্ছানুযায়ী। রাষ্ট্র সৃষ্টিতে ব্যক্তির ইচ্ছা-অনিচ্ছার গুরত্ব নেই। সমগ্র পৃথিবীর শাসনকর্তা সত্যিকার অর্থে সৃষ্টিকর্তা। তবে সৃষ্টিকর্তা নিজে রাষ্ট শাসন করেন না। তিনি প্রতিনিধির মাধ্যমে রাষ্ট্র শাসন করেন। শাসক বা রাজা হলাে ঈশ্বরের প্রতিনিধি। সৃষ্টিকর্তাকে যেমন অমান্য করা যায় না, তদ্রুপ তাঁর প্রতিনিধি রাজাকেও অমান্য বা তুচ্ছ করা যায় না।

মূলত রাজা বা শাসকের আদেশ-সৃষ্টিকর্তারই নির্দেশ। রাজাকে অবমাননা করা মানেই সৃষ্টিকর্তাকে অবমাননা করা। শাসন করার ক্ষেত্রে রাজা ঈশ্বর ছাড়া আর কারাে কাছে দায়বদ্ধ নয়। এ কারণে রাজার স্থায়ীত্ব জনগণের ওপর নির্ভরশীল নয়। শাসকগণ একইসঙ্গে রাষ্ট্রপ্রধান এবং ধর্মীয় প্রধান। মধ্যযুগের রাষ্ট্রচিন্তা বিদ সেন্ট অগাস্টিন মূলত এই চিন্তার প্রবক্তা।

বল প্রয়ােগ মতবাদ:

বল প্রয়ােগ মতবাদের সারকথা হলাে রাষ্ট্রের সৃষ্টি হয়েছে শক্তি প্রয়ােগের মাধ্যমে। এই মতবাদে বিশ্বাসীদের মতে, আদিম সমাজে যারা দৈহিক শক্তির অধিকারী ছিল তারা বল পয়ােগ করে নিজ গােত্র বা গােষ্ঠীর ওপর নিয়ন্ত্রণ আরােপ করত। কালক্রমে খাদ্য ও বাসস্থানের চাহিদার কারণে শক্তিশালী গােত্র আবার অপেক্ষাকৃত কম শক্তিশালী গােত্রের ওপর প্রাধান্য বিন্দুর করত। আর এভাবে সবলরা অপেক্ষাকৃত দুর্বলদের ওপর শক্তি প্রয়ােগ করে আইন-কানুন চাপিয়ে দিয়ে রাষ্ট্র গঠন করেছে। অর্থাৎ বৃহত্তর সমাজ শক্তি প্রয়ােগের মাধ্যমে রাষ্ট্রে রূপান্তরিত হয়েছে। এই মতবাদ অনুযায়ী শক্তি হলাে রাষ্ট্রের মূল ভিত্তি।

সামাজিক চুক্তি মতবাদ:

সামাজিক চুক্তি মতবাদ রাষ্ট্রের উৎপত্তির ক্ষেত্রে একটি কাল্পনিক মতবাদ। এই মতবাদের মূল কথা হলাে – সৃষ্টির শুরুতে বা আদিম সমাজে মানুষ প্রকৃতির রাজ্যে বাস করত। প্রকৃতির রাজ্যের মানুষ প্রাকৃতিক আইন মেনে চলতাে এবং তারা কিছু প্রাকৃতিক অধিকার ভােগ করত। কিন্তু প্রাকৃতিক আইন ও অধিকার সম্পর্কে বিভিন্ন ব্যাখ্যার ফলে প্রকৃতির রাজ্যে মানুষের বসবাস দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ মতবাদগুলাের মধ্যে এ মতবাদ সবচেয়ে আধুনিক, যুক্তিযুক্ত ও গ্রহণযােগ্য মতবাদ।

বিবর্তনমূলক মতবাদের মাধ্যমেই রাষ্ট্রের উৎপত্তির সবচে সঠিক বর্ণনা পাওয়া যায়। এ মতবাদের মূল কথা হলাে, রাষ্ট্র কোন একটি বিশেষ কারণে হঠাৎ করে সৃষ্টি হয়নি। বহু যুগের বিবর্তনের ফল রাষ্ট্র। পরিবার কিংবা সমাজ থেকে রাষ্ট্রের বিবর্তনে কতকগুলাে উপাদান কাজ করেছে। অধ্যাপক গার্নার, বার্জেস, গেটেলসহ প্রমুখ রাষ্ট্রবিজ্ঞানী রাষ্ট্রের উদ্ভবের ক্ষেত্রে এ মতবাদকে সর্বশ্রেষ্ঠ বলে রায় দিয়েছেন।

সরকারের ধারণা:

যে চারটি উপাদান নিয়ে রাষ্ট্র গঠিত হয় তার মধ্যে অন্যতম একটি উপাদান হল সরকার। সরকার ব্যতীত রাষ্ট্র পরিচালনা করা অসম্ভব।

রাষ্ট্রের কর্মকান্ড সরকারের মাধ্যমেই প্রকাশিত হয়। সরকার হল একটি বাস্তব রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। একে রাষ্ট্রের মুখপাত্রও বলা হয়। বৃহৎ অর্থে সরকার গঠিত হয় সকল নাগরিকের সম্মতিক্রমে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে নির্বাচকমন্ডলী তাদের ভােটাধিকার প্রয়ােগ, করে সরকার গঠন বা পরিবর্তন করে থাকে। যে চারটি উপাদান নিয়ে রাষ্ট্র গঠিত হয় তার মধ্যে অন্যতম একটি উপাদান হল সরকার। সরকার ব্যতীত রাষ্ট্র পরিচালনা করা অসম্ভব। রাষ্ট্রের কর্মকান্ড সরকারের মাধ্যমেই প্রকাশিত হয়। সরকার হল একটি বাস্তব রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। একে রাষ্ট্রের মুখপাত্রও বলা হয়।

বৃহৎ অর্থে সরকার গঠিত হয় সকল নাগরিকের সম্মতিক্রমে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে নির্বাচকমন্ডলী তাদের ভােটাধিকার প্রয়ােগ করে সরকার গঠন বা পরিবর্তন, করে থাকে। উপরােক্ত চারটি মৌলিক উপাদান ব্যাতীত রাষ্ট্র গঠিত হতে পারে না। রাষ্ট্রের সাথে সরকারের সম্পর্ক: রাষ্ট্র ও সরকারের গভীর সম্পর্ক বিদ্যমান। প্রাচীনকালে রাষ্ট্র ও সরকারকে একই অর্থে ব্যবহার করা হত। আপাত দৃষ্টিতে রাষ্ট্র ও সরকার শব্দ দুটি সমার্থক মনে হলেও উভয়ের মধ্যে সুস্পষ্ট পার্থক্য বিদ্যমান। রাষ্ট্র একটি বিমূর্ত ধারণা। আর সরকার সেই ধারণার বাস্তব, সংগঠন। রাষ্ট্র একটি পূর্ণাঙ্গ প্রতিষ্ঠান। চারটি অন্যতম উপাদান নিয়ে রাষ্ট্র গঠিত। এর একটিকে বাদ দিয়ে রাষ্ট্র গঠিত হতে পারে না। আর সরকার রাষ্ট্রের চারটি উপাদানের একটি উপাদান। এদের মধ্যে সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য।

অধ্যাপক গার্নার বলেন, “রাষ্ট্রকে যদি জীবদেহ মনে করা হয় তাহলে সরকার হলাে এর মক্কি।” তবে রাষ্ট্র ও সরকারের মধ্যে কিছু মৌলিক পার্থক্য বিদ্যমান। নিম্নে তা আলােচনা করা হলাে :

১। সরকার রাষ্ট্রের চারটি উপাদানের একটি।

২। রাষ্ট্র স্থায়ী, সরকার অস্থায়ী ও পরিবর্তনশীল।

৩। সরকার বাস্তব প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্র বিমূর্ত ধারণা।

৪। রাষ্ট্র মােট জনসমষ্টি নিয়ে গঠিত। সরকার মােট জনসমষ্টির একটি ক্ষুদ্র অংশ নিয়ে গঠিত।

৫। সরকারের বিভিন্ন রূপ হতে পারে, কিন্তু রাষ্ট্রের কোন পরিবর্তন সম্ভব নয়।

৬। রাষ্ট্রের শাসন কার্য পরিচালনার জন্য সরকার পরিবর্তন হয়। কিন্তু রাষ্ট্রের পরিবর্তন হয় না।

Conclusion

Finally, we wish the students all the best. May they bring success in their lives. And we will try our best to help them move forward. Only then can we see our work as successful. Stay with us until then.

Updated: September 19, 2021 — 5:41 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *